ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০২ জুলাই ২০২০,   আষাঢ় ১৭ ১৪২৭,   ১১ জ্বিলকদ ১৪৪১

DinBodolBD
সর্বশেষ:
বৃষ্টির কারণে ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজের উদ্বোধণী ম্যাচ শুরু হবে সন্ধ্যা ৬.৩০ মিনিটে

আলিফ লাইলা-৮: তোমার হলো শাড়ি, আমার হলো সাড়া

প্রকাশিত: ১৯:৪৯, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

প্রিয় দিদি শেহেরজাদি, কিছুদিন আগে বাংলাদেশ সরকারের এক মন্ত্রী সগর্বে ফেসবুকে ঘোষণা দিয়েছিলেন, তরুণ সমাজের বখে যাওয়া রুখতে এবং উন্নত নৈতিক চরিত্র গঠনের লক্ষ্যে সব পর্নোসাইট নাকি তিনি বন্ধ করে দিয়েছেন। সপ্তাহ কয়েক আগে বাংলাদেশের কোনো এক শহরে এক পুলিশ কর্মকর্তা নাপিতদের নির্দেশ দিয়েছিলেন, তরুণ খদ্দেরদের মাস্তান টাইপ চুলের কাট না দিতে। অন্য এক উপজেলায় এক ক্ষমতাবান ব্যক্তি স্কুলে ঢুকে বেশ কিছু ছাত্রের মাথা ন্যাড়া করে দিয়েছেন। মনে পড়ছে, সত্তরের দশকে রক্ষীবাহিনী প্রথম এই কুন্তল-সংস্কারের অত্যাচার করে সবার বিরাগভাজন হয়েছিল। একাধিক সামরিক শাসনকালে রাস্তায় ধরে ধরে পুরুষের লম্বা চুলে কাঁচি চালানো হয়েছে, আলকাতরার পোঁচ পড়েছে শাড়িপরা নারীর পেটে। কয়েক বছর আগে চট্টগ্রামের এক ধর্মগুরু বলেছিলেন, মেয়েরা হচ্ছে তেঁতুল, কারণ তাদের দেখলেই নাকি জিভে জল আসে। অতি সম্প্রতি শাড়ি ও নারী শরীর নিয়ে এক নিবন্ধ লিখে সামাজিক গণমাধ্যমে সমালোচনার মুখে পড়েছেন বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ। এগুলো কি সব বিচ্ছিন্ন ঘটনা, দিদি, নাকি কোনো বিশেষ মানসিক বৈশিষ্ট্যের কারণেই বাঙালিরা এমনধারা আচরণ করে থাকে?