রাজধানীর মোড়ে মোড়ে কোরবানির গোশতের বাজার

দিন বদল বাংলাদেশ ডেস্ক || দিন বদল বাংলাদেশ

প্রকাশিতঃ সকাল ১১:৪৪, সোমবার, ১১ জুলাই, ২০২২, ২৭ আষাঢ় ১৪২৯
সংগৃহীত ছবি

সংগৃহীত ছবি

বিভিন্ন বাসা-বাড়ি থেকে সংগ্রহ করা কোরবানির গোশত বিক্রির জন্য রাজধানীর মোড়ে মোড়ে গড়ে উঠেছে ক্ষণস্থায়ী বাজার।

ঈদের দিন দুপুর থেকে এ সব বাজারে মাংস বিক্রি করছেন প্রান্তিক মানুষ। সহনশীল দামে তা কিনেও নিয়ে যাচ্ছেন সীমিত সাধ্যের ভোক্তারা। রাজধানীর এ সব বাজারে রকমভেদে গোশত বিক্রি হচ্ছে ৩০০ টাকা থেকে ৪৫০ টাকা পর্যন্ত।

খিলগাঁও রেলগেটের সামনে কয়েক ভাগ গোশত নিয়ে বসেছেন রহিম মিয়া। কুড়িয়ে পাওয়া গোশত নয়, বিভিন্ন বাসায় কোরবানির মাংস কাটার পর নিজের ও দলের ভাগ একত্রিত করে বিক্রির জন্য বসেছেন। তার বাড়ি রংপুর। এত গোশত নেওয়া সম্ভব না, তাই বিক্রি করা ছাড়া উপায় নেই। দাম কেমন এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘৩০০ টাকা কেজি, কিছু কমাইয়া হইলেও দিয়া দিমু।’

ঈদের দিন বাড়ি বাড়ি গিয়ে গোশত সংগ্রহ করেন নিম্ন আয়ের খেটে খাওয়া মানুষ। দিন শেষে তারাই আবার খাওয়ার জন্য কিছু মাংস রেখে বাকিগুলো বিক্রি করে দেন। রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় এই মাংস পাওয়া যায় যা অনেকের কাছে গরিবের গোশতের হাট নামে পরিচিত।

পুরান ঢাকার নয়াবাজার, মগবাজার রেলগেট, বাংলামটর, হাতিরপুল, মৌচাক, খিলগাঁও ফ্লাইওভারসংলগ্ন রেলগেট, রামপুরাসহ বিভিন্ন মোড়ে এমন হাটের দেখা মেলে। সেখানে গোশত আসা শুরু হয় বেলা ৩টার পর, যা চলবে রাত অবধি।

সাধারণত নিম্নবিত্তরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে সংগ্রহ করেন এসব গোশত। আবার অনেকেই মৌসুমি কসাই। কাটাকাটির পর সেখান থেকে গোশত পেয়েছেন তারা। কেউ আবার টাকার বদলে গোশত নিয়েছেন। এসব গোশতই বিক্রি হচ্ছে অস্থায়ী এসব বাজারে।

মগবাজার রেলগেটে বসা কয়েকজন গোশত বিক্রেতার কাছে থেকে গোশত কিনছেন একটি হোটেলের ম্যানেজার। নাম-পরিচয় প্রকাশ না করার শর্তে তিনি বলেন, ‘প্রতি বছরই কোরবানি ঈদে হোটেলের জন্য এসব গোশত সংগ্রহ করি। দামে কম হওয়ায় এসব গোশত কেনা লাভজনক।’

রিকশাচালক মো. বাদল কিনতে এসেছেন গোশত। তিনি বলেন, ‘আমাগো মতো গরিব মাইনষে তো এত টাকা দিয়া গোস্ত কিনতে পারব না। এসব হাট থাইকাই গোশত কিনি।’

গোশত বিক্রি হচ্ছে দুইভাবে। ব্যাগ হিসেবে প্যাকেজ অথবা কেজি দরে। প্রতিকেজি গোশতের দাম হাঁকা হচ্ছে ৩০০ থেকে ৪৫০ টাকা পর্যন্ত। আর হাড় ছাড়া বা খুব কম হাড়ওয়ালা গোশতের দাম আরো বেশি। শুধু গোশত নয়, এসব বাজারে ভুঁড়ি, পা, আস্ত মাথা বা মাথার গোশতও বিক্রি হচ্ছে।

দিনবদলবিডি/আরএজে

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়