থার্ড জেন্ডারকে যারা অস্বীকার করে তারা আল্লাহর বাণীকেই অস্বীকার করে!

দিন বদল বাংলাদেশ ডেস্ক || দিন বদল বাংলাদেশ

প্রকাশিতঃ দুপুর ১২:২৫, বৃহস্পতিবার, ২৫ জানুয়ারি, ২০২৪, ১১ মাঘ ১৪৩০
ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

  • হিজরা জনগোষ্ঠী রয়েছে তাদের কথাই বলা হয়েছে গল্পে
  • হিজড়াদের আল্লাহ সৃষ্টি করেছেন
  • যে মুসলিম আল্লাহর সৃষ্টিতে বিশ্বাস করে না
  • হিজড়া সন্তানরা মা-বাবার সম্পত্তির ভাগ পাবে

ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষকের প্রকাশ্যে বই ছেড়ার ভিডিও নিয়ে সারা দেশে তোলপাড় চলছে। প্রশ্ন উঠেছে ওই শিক্ষকের যোগ্যতা নিয়েও, যিনি ট্রান্স জেন্ডার বা রূপান্তরিত লিঙ্গ ও থার্ড জেন্ডার বা তৃতীয় লিঙ্গ' যাদের হিজরাও বলা হয়, তাদের পার্থক্য বোঝেন না।

ইসলামিক স্কলাররা বলছেন, পুরুষ ও নারীর বাইরে হিজরা জনগোষ্ঠী রয়েছে তাদের কথাই বলা হয়েছে গল্পে। সম্ভবতগল্পটি না পড়েই থার্ড জেন্ডারকে ট্রান্স জেন্ডার ভেবে বিতর্কের জন্ম দিয়েছেন তিনি। কেননা ইসলাম ধর্মে ট্রান্স জেন্ডার বা রূপান্তরিত লিঙ্গ নিয়ে ঘোর আপত্তি আছে। 

এ বিষয়ে সকলেই একমত ইসলামী চিন্তাবিদরা বলছেন, থার্ড জেন্ডার বা হিজড়া জনগোষ্ঠী কোন পরিবারেই জন্ম নিয়েছে। এদেরকেও আল্লাহ সৃষ্টি করেছেন। 

আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কোরআন মাজিদে বলেন, তিনি আল্লাহ মাতৃগর্ভে তোমাদেরকে যেমন ইচ্ছা তেমন রূপ দেন …( সূরা আল ইমরান-৬)। কাজেই আল্লাহ মাতৃগর্ভে উক্ত মানুষটিকে যে অবয়বেই সৃষ্টি করেন তাকে মেনে নিতে হবে এবং মানুষ হিসেবে সকল অধিকার দিতে হবে।

এছাড়া মহানবী সা. নিজেও বলেছেন, নিশ্চয়ই আল্লাহ তায়ালা তোমাদের চেহারা বা অবয়ব ও সম্পদ দেখেন না বরং তিনি তোমাদের হৃদয় ও আমলসমূহ দেখেন। ...( সহি মুসলিম -৬৭০৮)

আল্লাহর সৃষ্টিকে বই থেকে মুছে ফেলে ব্র্যাকের শিক্ষক নিজেকে একজন ধর্মপ্রাণ মুসলিম হিসেবে জাহির করতে চাচ্ছেন,  অথচ যে মুসলিম আল্লাহর সৃষ্টিতে বিশ্বাস করে না, সে ব্যক্তি কি করে মুসলিম হয়? মূলত এরাই ধর্মের প্রকৃত বাণী না বুঝে সমাজের মাঝে বিভেদ সৃষ্টি করে বলে মনে করেন ইসলামিক স্কলাররা।

ইসলামি শরীয়া অনুযায়ী, হিজড়া সন্তানরা মা- বাবার সম্পত্তির ভাগ পাবে। প্রতিবন্ধী মানুষের যেমন শারীরিক ত্রুটি থাকে এটি তেমনই একটি ত্রুটি। তবে এই ত্রুটির জন্য তাদেরকে সমাজ থেকে বের করে দেয়া ঠিক না। বরং অন্যান্য প্রতিবন্ধীদের মতো তারা আরো বেশি স্নেহ মমতা ও ভালোবাসা পাওয়ার অধিকার রাখে।

দিনবদলবিডি/Rabiul

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়