দেশিরা অনুমতি ছাড়া বাংলাদেশে কাজ করতে পারবেন না

নিউজ ডেস্ক || দিন বদল বাংলাদেশ

প্রকাশিতঃ রাত ০৮:০৮, বৃহস্পতিবার, ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ২৫ মাঘ ১৪৩০
ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

আয়কর ফাঁকি দিয়ে অনেক বিদেশি নাগরিক এ-থ্রি ভিসা, বি-ভিসা কিংবা টুরিস্ট ভিসায়  বাংলাদেশে এসে কাজ করছেন। অনেক ক্ষেত্রে তারা এক প্রতিষ্ঠানের জন্য কাজে এসে অন্য প্রতিষ্ঠানে চলে যাচ্ছেন।  ২০০৬ সালে প্রণীত ভিসা নীতিতে কাজের জন্য অনুমতি গ্রহণের শর্ত না থাকায় অনেক বিদেশিরা এই সুযোগ নিচ্ছেন।

বিদেশি নাগরিক এ-থ্রি ভিসা, বি-ভিসা কিংবা টুরিস্ট ভিসায় বাংলাদেশে এসে কাজ করছেন। আয়কর ফাঁকি দিচ্ছেন । সরকার হারাচ্ছে বিপুল পরিমান রাজস্ব। তাই অনুমতি ছাড়া বাংলাদেশে কাজ করছে এমন বিদেশিদের ব্যাপারে কঠোর হচ্ছে সরকার। অনুমতি ছাড়া বিদেশি নাগরিকদের বাংলাদেশে কোনও কাজে আর যুক্ত হওয়ার সুযোগ থাকবে না বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. তোফাজ্জল হোসেন মিয়া।


তোফাজ্জল হোসেন মিয়া বলেন, আয়কর ফাঁকি দিয়ে অনেক বিদেশি নাগরিক এ-থ্রি ভিসা, বি-ভিসা কিংবা টুরিস্ট ভিসায়  বাংলাদেশে এসে কাজ করছেন। অনেক ক্ষেত্রে তারা এক প্রতিষ্ঠানের জন্য কাজে এসে অন্য প্রতিষ্ঠানে চলে যাচ্ছেন।  ২০০৬ সালে প্রণীত ভিসা নীতিতে কাজের জন্য অনুমতি গ্রহণের শর্ত না থাকায় অনেক বিদেশিরা এই সুযোগ নিচ্ছেন। 

অনেকে আবার ভিসার শেষ হয়ে যাওয়ার পরেও বছরের পর বছর কাজ করছে। আবার ধরা পড়লে মাত্র ৩০ হাজার টাকা জরিমানা দিয়ে দেশ ত্যাগ করেন। এক্ষেত্রে আমরা দৈনিক ও প্রগ্রেসিভহারে জরিমানার বিধান আরোপ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

তবে কাজের অনুমতি থাকা বিদেশি নাগরিকরা যদি অন্য প্রতিষ্ঠানে যোগ দিতে চান। তাহলে নির্ধারিত ফি দিয়ে সেই প্রতিষ্ঠানে যেতে পারবেন। সেক্ষেত্রে তার নিজ দেশে গিয়ে পুনরায় ভিসা করার দরকার পড়বে না।  

অনুমতি ছাড়া কাজ করা বিদেশিদের ঠেকাতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগ, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ ব্যাংক, এনবিআর, বিডা, বেপজা, বেজা, হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ, এনজিওবিষয়ক ব্যুরো, এনএসআই, ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তর এবং পুলিশের এসবির প্রবেশযোগ্যতা থাকে, এমন একটি কেন্দ্রীয় তথ্যভাণ্ডার তৈরির সিদ্ধান্ত হয়েছে। বিদেশিদের করফাঁকি রোধ ও রাজস্ব বাড়াতে সরকারের এমন উদ্যোগকে ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন বিশ্লেষকরা।

দিনবদলবিডি/Nasim

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়