নাভালনির মরদেহ ‘লুকিয়ে’ রাখার অভিযোগ

আন্তর্জাতিক সংবাদ || দিন বদল বাংলাদেশ

প্রকাশিতঃ সকাল ১০:৫৩, রবিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ৫ ফাল্গুন ১৪৩০
ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের কট্টক সমালোচক ও দেশটির কারাবন্দি বিরোধী দলীয় নেতা অ্যালেক্সি নাভালনির মরদেহ তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হচ্ছে না বলে অভিযোগ উঠেছে।

সংবাদ মাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, শনিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) রাশিয়ার সালেখার্ড শহরের মর্গে গিয়েছিলেন নাভালনির মা এবং আইনজীবী। কিন্তু সেখানে যাওয়ার পর মর্গটি বন্ধ পেয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে ফোন করলে জানা যায়, মরদেহ মর্গে নেই। এ ঘটনার পর নাভালনির সমর্থকরা মরদেহটি অবিলম্বে তার পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেয়ার দাবি জানিয়েছেন।

এদিকে নাভালনির মুখপাত্র কিরা ইয়ারমিশ জানান, তাদের বিশ্বাস রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনই নাভালনিকে মেরে ফেলতে বলেছেন।

তিনি বলেন, আমরা নিশ্চিতভাবেই জানি এটা কোনো স্বাভাবিক মৃত্যু নয়, এটা হত্যাকাণ্ড। তারা এখন হত্যার প্রমাণ লোপাট করতে চাইছে। যে কারণে তারা পরিবারের কাছে মরদেহ হস্তান্তর করছে না। তারা নাভালনির মরদেহ লুকিয়ে রাখছে।

তবে রুশ কর্তৃপক্ষ বলেছে, নাভালনির আকস্মিক মৃত্যু হয়েছে এবং এ ঘটনার তদন্ত করা হচ্ছে।

শুক্রবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) অ্যালেক্সি নাভালনির মৃত্যুর খবর ঘোষণা করে রুশ কারা কর্তৃপক্ষ। এক বিবৃতিতে ইয়ামালো-নেনেটস জেলার কারা কর্তৃপক্ষ জানায়, সকালে হাঁটার পরে হঠাৎ নাভালনি অসুস্থ বোধ করেন। অসুস্থ বোধ করার প্রায় সঙ্গে সঙ্গে তিনি জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। এমন অবস্থায় তাৎক্ষণিক জরুরি মেডিকেল টিমকে ডাকা হয়। তারা এসে চেষ্টা করলেও নাভালনিকে বাঁচাতে পারেননি।

 রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের কঠোর সমালোচক ছিলেন ৪৭ বছর বয়সী নাভালনি। গত এক দশকে রাশিয়ায় বিরোধী নেতা হিসেবে বিশ্বব্যাপী সবচেয়ে বেশি পরিচিত মুখ হয়ে উঠেছিলেন তিনি। সবশেষ তাকে ২০২১ সালে গ্রেফতার করা হয়। তখন থেকে কারাগারেই ছিলেন।

গত বছরের শেষ দিকে তাকে উত্তর সাইবেরিয়ার ইয়ামালো-নেনেটস অঞ্চলের কারা কলোনিতে নেয়া হয়। সেখানেই নাভালনির মৃত্যু হয়। গ্রেফতার হওয়ার কয়েক বছর আগে তাকে বিষ প্রয়োগে হত্যা করার চেষ্টা হয়েছিল। তবে সেবার জার্মানিতে নিয়ে দ্রুত উন্নত চিকিৎসা দেয়ায় বেঁচে যান রাশিয়ার এই বিরোধী নেতা।

দিনবদলবিডি/Jannat

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়