৪৭-এ দেশভাগের সময় বিচ্ছিন্ন, দুই বন্ধুর আবেগঘন পুনর্মিলনের ভিডিও ভাইরাল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক || দিন বদল বাংলাদেশ

প্রকাশিতঃ বিকাল ০৪:২৬, সোমবার, ১১ মার্চ, ২০২৪, ২৬ ফাল্গুন ১৪৩০
দেশভাগের সময় বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া শৈশবের দুই ঘনিষ্ঠ বন্ধু সুরেশ কোঠারি ও এজি শাকির

দেশভাগের সময় বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া শৈশবের দুই ঘনিষ্ঠ বন্ধু সুরেশ কোঠারি ও এজি শাকির

 ভারত-পাকিস্তান বিভাজনের দীর্ঘ সময় পর দুই বন্ধুর এমন পুনর্মিলনের একটি ভিডিও সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমে বেশ ভাইরাল হয়েছে।  

১৯৪৭ সালের ভারত-পাকিস্তান বিভাজনের স্মৃতি এখনো বয়ে চলছেন সীমান্তের উভয় পাশের অনেক মানুষ। সেসময় হিন্দু-মুসলিম দাঙ্গায় লক্ষ লক্ষ মানুষ নিহত ও বাস্তুচ্যুত হয়েছিল। অনেকে হারিয়েছিলেন তাদের বন্ধুবান্ধব। এমনকি নিজ পরিবার থেকেও চিরতরে বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছিলেন অনেকে। খবর এনডিটিভির।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রে বেশ কয়েক বছর পর একে অপরের দেখা পেয়েছেন দেশভাগের সময় বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া শৈশবের দুই ঘনিষ্ঠ বন্ধু সুরেশ কোঠারি ও এজি শাকির। ভারত-পাকিস্তান বিভাজনের দীর্ঘ সময় পর দুই বন্ধুর এমন পুনর্মিলনের একটি ভিডিও সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমে বেশ ভাইরাল হয়েছে।  

দুই বন্ধুর পুনরায় দেখা হওয়ার এমন আবেগঘন মুহূর্তের ভিডিওটি ধারণ করেছেন সুরেশ কোঠারির নাতি মেগান কোঠারি (৩২)। এই ভিডিওটি তিনি সামাজিক যোগযোগ মাধ্যম ইন্সটাগ্রামে শেয়ার করেছেন। ভিডিওর ক্যাপশনে মেগান কোঠারি এই দুই বন্ধুর শৈশব থেকে শুরু করে পরবর্তী সময়ে দেখা হওয়ার বিষয়ে বিস্তারিত লিখেছেন।

ভিডিওটি দেখতে চাইলে ক্লিক করুন

সুরেশ কোঠারি ও এজি শাকিরের দেখা হয়েছিল ২০২৩ সালের অক্টোবরে যুক্তরাষ্ট্রে। তারা গুজরাটের ডিসাতে একসঙ্গে বেড়ে উঠেছিলেন। ১৯৪৭ সালে তারা যখন আলাদা হয়ে যান তখন তাদের বয়স ছিল প্রায় ১২ বছর।

দেশভাগের পর এজি শাকির পাকিস্তানে পৌঁছে সুরেশ কোঠারিকে তার রাওয়ালপিন্ডির ঠিকানা দিয়ে চিঠিও লিখেছিলেন। যা 'আজও আমার দাদা মুখস্ত করে রেখেছেন' বলে উল্লেখ করেছেন মেগান কোঠারি।

এরপর বছরের পর বছর ধরে একে অপরের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টাও করেছিলেন তারা। কিন্তু দুই দেশের চলমান উত্তেজনা শেষ পর্যন্ত এটিকে অসম্ভব করে তুলেছিল।

১৯৪৭ সাল থেকে ১৯৮১ সাল পর্যন্ত এই দুই বন্ধুর কোনো যোগাযোগ ছিল না। তবে তারা ১৯৮২ সালে নিউইয়র্কে পরস্পরের পরিচিত এক ব্যক্তির মাধ্যমে দেখা করেন।

এর ৪১ বছর পর পুনরায় তারা আবার দেখা করেন ২০২৩ সালের অক্টোবরে।

মেগান কোঠারির শেয়ার করা ভিডিওতে দুই বন্ধুকে হাতে হাত মেলানোসহ আলিঙ্গন করতে দেখা যায়।

ভিডিওটির ক্যাপশনে আরও লেখা আছে, ভৌগোলিক ও রাজনৈতিক প্রতিবন্ধকতা থাকা সত্ত্বেও তারা একে অপরের প্রতি যে ভালোবাসা ও শ্রদ্ধা ধরে রেখেছিলেন, তা গভীর।  কোনো সরকার অথবা সীমান্ত মানব যোগাযোগ বন্ধ করতে পারে না- এই মূহূর্তটি তার প্রমাণ।

সুরেশ কোঠারির ৯০তম জন্মদিনে তাদের আবার দেখা করানোর পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন দুই পরিবারের সদস্যরা। 

দিনবদলবিডি/Rony

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়