জিম্মি জাহাজে নাবিকদের সঙ্গে খাচ্ছে ৩০ দস্যু, ফুরিয়ে যাচ্ছে খাবার-পানি

দিন বদল বাংলাদেশ ডেস্ক || দিন বদল বাংলাদেশ

প্রকাশিতঃ বিকাল ০৩:৩১, শনিবার, ১৬ মার্চ, ২০২৪, ২ চৈত্র ১৪৩০
ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

প্রতি বেলায় এখন ৩০ জনের মতো জলদস্যু নাবিকদের সঙ্গে খাবার খাচ্ছেন। তাদের জন্য প্রতিদিন ২ থেকে ৩ বেলা রান্না বসাতে হচ্ছে।

ভারত মহাসাগরে জলদস্যুর কবলে পড়া জাহাজ এমভি আবদুল্লাহ’র জিম্মি নাবিকদের খাবারে ভাগ বসিয়েছে জলদস্যুরা। জিম্মি হওয়ার দিন নাবিকদের কাছে ২০-২৫ দিনের খাবার মজুত ছিল। পানি ছিল ২০০ টনের মতো। প্রতি বেলায় এখন ৩০ জনের মতো জলদস্যু নাবিকদের সঙ্গে খাবার খাচ্ছেন। তাদের জন্য প্রতিদিন ২ থেকে ৩ বেলা রান্না বসাতে হচ্ছে। এ কারণে দ্রুত ফুরিয়ে যাচ্ছে খাবার-পানি। জাহাজের চিফ কুক আরেকজনকে সঙ্গে নিয়ে এ রান্নার কাজ করছেন। জিম্মি জাহাজে থাকা নাবিকদের পাঠানো অডিও বার্তায় এসব তথ্য জানা গেছে।

বৃহস্পতিবার (১৪ মার্চ) এমভি আবদুল্লাহ জাহাজের চিফ অফিসার আতিক উল্লাহ খান পরিবারের সদস্যদের কাছে একটি অডিও বার্তা পাঠান। সেখানে বলেন, ‘জলদস্যুরাসহ আমাদের সঙ্গে খাওয়া-দাওয়া করছে। আমাদের পানি ব্যবহার করছে। আমাদের এ খাবার ১০-১৫ দিন বড়জোর যেতে পারে। ১০-১৫ দিন পর আমাদের খাবার যখন শেষ হয়ে যাবে তখন খুব কষ্টে পড়ে যাব। এটাই হলো আমাদের পরিস্থিতি।’

গত মঙ্গলবার (১২ মার্চ) জাহাজটির দেশে থাকা কর্মকর্তাদের কাছে পাঠানো এক অডিও বার্তায় আতিক উল্লাহ খান বলেন, ‘আমাদের জাহাজে ২০-২৫ দিনের খাবার এবং ২০০ টনের মতো খাবার পানি মজুত আছে। সবাইকে বলেছি, এগুলো সাবধানে ব্যবহার করতে। শেষ হয়ে গেলে বিপদে পড়বো আমরা।’

এদিকে, শুক্রবার জাহাজ এমভি আবদুল্লাহ’র অবস্থান পরিবর্তন করেছে। আগে নোঙর করা স্থান থেকে প্রায় ৪০ নটিক্যাল মাইল দূরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। জলদস্যুরা তাদের এলাকায় নিয়ে নোঙর করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

দিনবদলবিডি/Rony

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়