সংযোগ সড়ক না থাকায় ৪ বছর ধরে অকেজো সেতু

নিউজ ডেস্ক || দিন বদল বাংলাদেশ

প্রকাশিতঃ বিকাল ০৩:০০, সোমবার, ২৫ মার্চ, ২০২৪, ১১ চৈত্র ১৪৩০
ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

সড়কটি দিয়ে বাংলাবাজার, নরসিংপুর, বোগলাবাজার ও লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নসহ, মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত বাশতলা হকনগর শহিদ স্মৃতিসৌধ, হকনগর বাজার, চৌধুরী পাড়া বাজার, কলাউড়া মার্কেট, বাংলাবাজার, বড়খাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ, ঘিলাছড়া স্কুল অ্যান্ড কলেজ, দ্বীনেরটুক মাদরাসা ও কলাউড়া ফাজিল মাদরাসার ছাত্রছাত্রীসহ লাখো মানুষ ও যানবাহন চলাচল থাকে।  

সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজার উপজেলার বাংলাবাজার-নরসিংপুর সড়কের ঘিলাতলী সেতু অবহেলায় পড়ে রয়েছে। মূল সেতুর নির্মাণকাজ শেষ করা হলেও সেতুর দুই পাশে সংযোগ সড়ক (অ্যাপ্রোচ) না থাকায় কোনো কাজে আসছে না সেতুটি।


জানা গেছে, উপজেলা প্রকৌশলী অধিদফতর ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে ৩ কোটি ৭০ লাখ টাকা ব্যয়ে বাংলাবাজার-নরসিংপুর সড়কের মরাচেলা ঘিলাতলী নদীর উপর ৫১ মিটার আরসিসি গার্ডার সেতুটি নির্মাণ কাজ সমাপ্ত করে।

সড়কটি দিয়ে বাংলাবাজার, নরসিংপুর, বোগলাবাজার ও লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নসহ, মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত বাশতলা হকনগর শহিদ স্মৃতিসৌধ, হকনগর বাজার, চৌধুরী পাড়া বাজার, কলাউড়া মার্কেট, বাংলাবাজার, বড়খাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ, ঘিলাছড়া স্কুল অ্যান্ড কলেজ, দ্বীনেরটুক মাদরাসা ও কলাউড়া ফাজিল মাদরাসার ছাত্রছাত্রীসহ লাখো মানুষ ও যানবাহন চলাচল থাকে।  

ছাতক উপজেলার ইছামতী, শারপিনপাড়া কোম্পানিগঞ্জ উপজেলার ভোলাগঞ্জ ও উপজেলার সদরে যাতায়াতের অন্যতম সড়ক ব্যবস্থা এটি। ঘিলাতলী সেতুর অ্যাপ্রোচ সড়ক তৈরি না করায় জনগণের দুর্ভোগ লাঘবের বদলে বেড়েছে দ্বিগুণ। জনসাধারণের চলাচলে অনুপযোগী হওয়ায় তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে সাধারণ মানুষের মাঝে।

ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের পক্ষে নূরুল ইসলাম বলেন, অ্যাপ্রোচ সড়কের রিভাইস রিভিউ করে ঢাকা পাঠানো হয়েছে। অনুমোদন হলেই সড়ক নির্মাণের কাজ শুরু করা হবে।

দোয়ারাবাজার উপজেলা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরের (এলজিইডি) উপ-সহকারী প্রকৌশলী অভিলাষ চাকমা জানান, অ্যাপ্রোচ সড়ক মাটি ভরাট ও পাকাকরণের লক্ষ্যে মাপযোগ করে পাঠানো হয়েছে। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ সেতুটি পরিদর্শন করেছে। আশাকরি, দ্রুতই এটির অনুমোদন পাওয়া যাবে।

দিনবদলবিডি/Nasim

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়