র‍্যাবের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারিতে লবিং করেন জামায়াতের সেই ব্রিটিশ আইনজীবী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক || দিন বদল বাংলাদেশ

প্রকাশিতঃ রাত ০৮:০১, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০২২, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
টোবি ক্যাডম্যান

টোবি ক্যাডম্যান

বাংলাদেশের র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)-এর ওপর নিষেধাজ্ঞা জারির জন্য যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিলেন ব্রিটিশ আইনজীবী টোবি ক্যাডম্যান। এই টোবি ক্যাডম্যানকে ২০১১ সালে লন্ডনে নিজেদের আইন উপদেষ্টা হিসেবে নিয়োগ দিয়েছিল জামায়াতে ইসলামী।

মঙ্গলবার (০৬ ডিসেম্বর)  কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার এক প্রতিবেদনে ক্যাডম্যান বিষয়টি স্বীকার করেছেন।

টোবি ক্যাডম্যানকে বাংলাদেশের জামায়াতে ইসলামী ২০১১ সালে লন্ডনে নিজেদের আইন বিষয়ক উপদেষ্টা হিসেবে নিয়োগ দিয়েছিল। ওই সময় একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে জামায়াতের বেশ কয়েকজন শীর্ষ নেতার বিচার শুরু হয়েছিল। সে সময় পাঁচ জামায়াত নেতার আইনজীবী তাজুল ইসলাম সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন, স্টিভেন ক্যা কিউসি, টোবি ক্যাডম্যান ও জন ক্যামেগ রাজি হয়েছেন জামায়াত নেতাদের মক্কেল হিসেবে গ্রহণ করতে।

র‍্যাবের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের জন্য লবিংয়ের কথা স্বীকার করে আল জাজিরাকে ক্যাডম্যান বলেন, আমি নিষেধাজ্ঞা জারির জন্য অনুরোধ করেছি। যদিও আমি বিস্তারিত বিষয় নিয়ে আলোচনার মতো অবস্থায় নেই। তবে আমি নিশ্চিত করতে পারি যে এই নিষেধাজ্ঞার অনুরোধ নিয়ে আমি পররাষ্ট্র, কমনওয়েলথ ও উন্নয়ন কার্যালয়ের সঙ্গে আলোচনা করেছি।

ব্রিটিশ ব্যারিস্টার বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সমন্বিতভাবে যুক্তরাজ্য নিষেধাজ্ঞা জারি করবে বলে আমার অবস্থান ছিল। কিন্তু যুক্তরাজ্য তা না করায় আমি চরম হতাশ হয়েছি।

টোবি ক্যাডম্যান ২০১৬ সালের শুরুর দিকে জামায়াত নেতা মীর কাসেমের লবিস্ট হিসেবে মানবতাবিরোধী অপরাধীদের বিচার নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। হাফিংটন পোস্টে তিনি মানবতাবিরোধী অপরাধের বিষয়কে পাশ কাটিয়ে কেবল বিরোধীদলীয় নেতাদের বিচারের বিষয়টিকে বিকৃতভাবে তুলে ধরেছিলেন।

দিনবদলবিডি/এমআর

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়