ঢাবি ছাত্রীদের আবাসিক হলে সব ধর্মের প্রার্থনা কক্ষ

দিনবদলবিডি ডেস্ক || দিনবদলবিডি.কম

প্রকাশিত: বিকাল ০৩:৫৬, রবিবার, ১৭ জুলাই, ২০২২, ২৪ শ্রাবণ
ঢাবি ছাত্রীদের আবাসিক হলে সব ধর্মের প্রার্থনা কক্ষ

সংগৃহীত ছবি

মুসলিম শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি অন্যান্য ধর্মাবলম্বি শিক্ষার্থীদের উপাসনার জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ছাত্রী হলগুলোতে খোলা হয়েছে পৃথক প্রার্থনা কক্ষ। 

শিক্ষার্থীদের দীর্ঘদিনের দাবির প্রেক্ষিতে ধর্ম পালনের এমন সুযোগ তৈরি করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। ঢাবিতে আবাসিক হলের ১৪টি ছাত্রদের জন্য এবং ৫টি ছাত্রীদের জন্য। বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হলে ইসলাম ধর্ম ছাড়াও অন্য ধর্মের ছাত্ররা থাকেন। অন্যদিকে ভিন্ন ধর্মের ছাত্রীদের জন্য আলাদা হল নেই, ৫টি ছাত্রী হলেই সব ধর্মের শিক্ষার্থী রয়েছে।

এতদিন মুসলিম শিক্ষার্থীদের সব হলে নামাজের কক্ষ থাকলেও সনাতন ধর্মাবলম্বীসহ অন্যান্যদের ধর্মের শিক্ষার্থীদের জন্য প্রার্থনা কক্ষ ছিল না। চলতি বছরের শুরুতে ছাত্রীদের হলগুলোতে সনাতন ধর্মাবলম্বীসহ সব ধর্মের প্রার্থনার জন্য আলাদা কক্ষের দাবি জানায় ডাকসুর সাবেক সদস্য ও ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি তিলোত্তমা শিকদারের নেতৃত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল নারী শিক্ষার্থী। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভোস্ট কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী রোকেয়া হল এবং বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হল, সুফিয়া কামাল হল, কুয়েত মৈত্রী হল এবং সম্প্রতি শামসুন নাহার হলে সব ধর্মের জন্য আলাদা প্রার্থনা কক্ষের ব্যবস্থা করা হয়।

প্রভোস্ট স্ট্যান্ডিং কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ড. আবদুল বাছির বলেন, এতদিন ছাত্রীদের হলে শুধু মুসলিম শিক্ষার্থীদের জন্য নামাজ ঘর ছিল। শিক্ষার্থীদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে এখন ছাত্রীদের সব হলেই হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিষ্টান ধর্মের শিক্ষার্থীদের জন্য প্রার্থনা কক্ষ খোলা হয়েছে।ৎ

শামসুন নাহার হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. লাফিফা জামাল বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় একটা অসাম্প্রদায়িক জায়গা, এখানে সব ধর্মের শিক্ষার্থীদের সমান অধিকার আছে। শিক্ষার্থীদের দাবি এবং প্রভোস্ট কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আমরা এই ব্যবস্থা করেছি। অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোও এক্ষেত্রে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো করে সামনে এগিয়ে আসবে বলে আমাদের প্রত্যাশা।

ছাত্রীদের সব হলে প্রার্থনা কক্ষ নিশ্চিত হওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিলোত্তমা শিকদার বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সনাতন ধর্মাবলম্বী ছাত্রদের জন্য আলাদা হল এবং উপাসনালয় রয়েছে। তবে ছাত্রীদের হলে প্রার্থনার জন্য কোনো উপাসনালয় ছিল না। অসাম্প্রদায়িক এই বিশ্ববিদ্যালয়ে সব ধর্মের জন্য প্রার্থনা কক্ষ বরাদ্দের বিষয়ে কর্তৃপক্ষের কাছে আমরা দাবি জানিয়েছিলাম। তারই পরিপ্রেক্ষিতে ছাত্রীদের হলগুলোতে এখন প্রার্থনা কক্ষ খোলা হয়েছে। এজন্য আমরা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানাই।

দিনবদলবিডি/আরএজে

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়