মঙ্গলবার

২৬ অক্টোবর ২০২১


১১ কার্তিক ১৪২৮,

১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

দিন বদল বাংলাদেশ

কালীগঞ্জে খালি গায়ে নারীদের টিকা প্রদান!

ঝিনাইদহ সংবাদদাতা || দিনবদলবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:১৬, ১১ অক্টোবর ২০২১   আপডেট: ২১:৩১, ১১ অক্টোবর ২০২১
কালীগঞ্জে খালি গায়ে নারীদের টিকা প্রদান!

ছবি: দিনবদলবিডি ডট কম

পরনে শুধু প্যান্ট। শার্ট খুলে রেখেছেন। এভাবে উদোম গায়ে তিনি নারীদের শরীরে করোনার টিকা দিয়ে যাচ্ছিলেন। আবার ভিড় একটু হাল্কা হলেই টিকা দেওয়া কেন্দ্রেই চেয়ারে বসে করছেন ধূমপান। গতকাল রবিবার দুপুরে এমনই চিত্র দেখা গেছে ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। 

সরেজমিন দেখা গেছে, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে হাসপাতালের ভেতর করোনার টিকা প্রদান করা হচ্ছে। নারী-পুরুষদের জন্য কোনো আলাদা বুথ নেই। এ সময় একজন নার্স ও কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল টেকনোলজিস্ট (ইপিআই) শহিদুল ইসলামের গায়ে জামা বলতে শুধু ছিল প্যান্ট। শরীরের উপরের অংশ একদম খালি- এমনকি স্যান্ডো গেঞ্জিটা পর্যন্ত নেই। ওই অবস্থায় উদোম গায়ে তিনি নারীদের টিকা প্রদান করছেন। এ সময় বেশ কয়েকজন নারীকে অস্বস্তিতে পড়তে দেখা গেছে।

টিকা দেওয়া শেষে কেউ কেউ বলছেন, সরকারি হাসপাতালে এভাবে খালি শরীরে টিকা দেওয়া এর আগে কখনো দেখিনি। এছাড়া শহিদুল ইসলামকে টিকাদান কেন্দ্রের একটি চেয়ারে বসে সিগারেট পান করতেও দেখা গেছে। এ সময় তার পাশে টিকা প্রদানে সহায়তাকারী রেড ক্রিসেন্টসহ হাসপাতালের কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। ধূমপান করার সময় পাশেই টিকা প্রদান কাজ চলছিল।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক হাসপাতালের এক কর্মচারী জানান, সকাল সাড়ে ১০টার পর থেকে প্রায় দুপুর ১টা পর্যন্ত তিনি খালি শরীরে টিকা প্রদান করেন। এরমধ্যে তিনি সিগারেট ধরিয়ে ধূমপানও করেন।

হাসপাতালে আসা রিওন হোসেন নামে একজন জানান, একজন সরকারি কর্মচারী কোনোভাবেই খালি শরীরে দায়িত্ব পালন করতে পারেন না। তারওপর তিনি নারীদের করোনার টিকা প্রদান করছেন। তারপরও তিনি টিকা কেন্দ্রে বসেই ধূমপান করছেন। এ ঘটনায় তার উপযুক্ত শাস্তি হওয়া উচিৎ।

টিকা নিতে স্বপ্না খাতুন নামের এক নারী জানান, তাকে খালি গায়ে এক ব্যক্তি টিকা প্রদান করেছেন। এটা বিরাট অস্বস্তিকর একটা অবস্থা। একদমই দায়িত্ব জ্ঞানহীনতার পরিচয়।

রিতা রানী নামের আরেক নারী জানান, সরকারি হাসপাতালে উদোম শরীরে দায়িত্ব পালন এই প্রথম দেখেছেন। এমন খালি শরীরে টিকা প্রদান করার বিধান যদি না থাকে তাহলে উপযুক্ত শাস্তি হওয়া উচিৎ।  

এ ব্যাপারে প্রশ্ন করলে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল টেকনোলজিস্ট (ইপিআই) শহিদুল ইসলাম বলেন, শার্ট ঘেমে ভিজে গিয়েছিল তাই খুলে রৌদ্রে রেখেছিলাম। এজন্য খালি শরীরে টিকা প্রদান করেছি। তিনি আরো বলেন, যখন চাপ কম ছিল তখন একটু দূরে বসে সিগারেট ধরিয়ে ধূমপান করেছি।   

কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ডা. অরুন কুমার বলেন, খালি গায়ে দায়িত্ব পালন করার কোনো নিয়ম নেই। তাছাড়া পাবলিক স্থানে ধূমপান করার কোনো বিধানও নেই। চাকরিবিধি অনুযায়ী যদি তিনি কোনো অবহেলা করে থাকেন তাহলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

দিনবদলবিডি/কে

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়