শনিবার

২২ জানুয়ারি ২০২২


১০ মাঘ ১৪২৮,

১৬ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

দিন বদল বাংলাদেশ

পুড়ে অঙ্গার হওয়া কে এই বিপিন রাওয়াত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক || দিনবদলবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:২২, ৮ ডিসেম্বর ২০২১  
পুড়ে অঙ্গার হওয়া কে এই বিপিন রাওয়াত

বিপিন রাওয়াত

ভারতীয় বিমান বাহিনীর হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়ে দেশটির চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফ (সিডিএস) জেনারেল বিপিন রাওয়াত ও তার স্ত্রী মধুলিকাসহ ১৩ জন নিহত হয়েছেন।

এক টুইটে দেশটির বিমানবাহিনী বলেছে, ‘অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে আমরা নিশ্চিত করছি যে, জেনারেল বিপিন রাওয়াত, মিসেস মধুলিকা রাওয়াত ও হেলিকপ্টারে থাকা তাদের ১১ সফরসঙ্গী দুর্ভাগ্যজনক এক দুর্ঘটনায় মারা গেছেন।’

বুধবার (৮ ডিসেম্বর) বেলা ১২ টা ২০ মিনিটে তামিলনাড়ুর কুন্নুরের জঙ্গলে দেশটির প্রতিরক্ষাপ্রধানসহ ১৪ জনকে বহনকারী হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হলে প্রাণহানির এই ঘটনা ঘটে। তবে এ ঘটনায় মাত্র একজন জীবিত আছেন; যার শরীরের ৯০ শতাংশ পুড়ে গেছে এবং তার পরিচয় এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

বিপিন রাওয়াত উত্তরাখণ্ডের পাউরিতে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি একটি হিন্দু গাড়োয়ালি রাজপুত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন, যেটি একাধিক প্রজন্ম থেকে ভারতীয় সেনাবাহিনীতে কাজ করে আসছে। তার বাবা লক্ষ্মণ সিং রাওয়াত ভারতীয় সেনাবাহিনীতে চাকরি করার সময় লেফটেন্যান্ট জেনারেল পদে উন্নীত হয়েছিলেন। তার মা ছিলেন উত্তরকাশীর প্রাক্তন বিধায়ক কিষাণ সিং পারমারের মেয়ে।

বিপিন রাওয়াতের শিক্ষা

বিপিন রাওয়াত ক্যামব্রিয়ান হিল স্কুল, দেরাদুন এবং সেন্ট এডওয়ার্ড স্কুল, সিমলা থেকে তার স্কুলিং শেষ করেন। এরপর তিনি ন্যাশনাল ডিফেন্স একাডেমি, খাদকওয়াসলা এবং ইন্ডিয়ান মিলিটারি একাডেমি, দেরাদুন-এ যোগ দেন, যেখানে তিনি 'সোর্ড অফ অনার'-এ ভূষিত হন।

রাওয়াত ডিফেন্স সার্ভিসেস স্টাফ কলেজ ওয়েলিংটন থেকে শিক্ষা গ্রহণ করেছেন এবং ফোর্ট লিভেনওয়ার্থ, ক্যানসাসের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সেনা কমান্ড এবং জেনারেল স্টাফ কলেজে উচ্চতর কমান্ড কোর্স সম্পন্ন করেছেন।

তিনি ডিফেন্স স্টাডিজে এমফিল ডিগ্রির পাশাপাশি মাদ্রাজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ম্যানেজমেন্ট এবং কম্পিউটার স্টাডিজে ডিপ্লোমা করেছেন।

মিলিটারি-মিডিয়া স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজ নিয়ে গবেষণার জন্য মিরাটের চৌধুরী চরণ সিং ইউনিভার্সিটি তাকে ডক্টরেট অফ ফিলোসফিতে ভূষিত করে।

বিপিন রাওয়াতের সামরিক কর্মজীবন

১৬ ডিসেম্বর ১৯৭৪ এ ১১ গোর্খা রাইফেলসের ৫তম ব্যাটালিয়নে ভর্তি হওয়া দিয়ে শুরু  হয়েছিল। একই ইউনিটে তার পিতাও নিয়োজিত ছিলেন। একজন মেজর হিসাবে, তিনি জম্মু ও কাশ্মীরের উরিতে একটি কোম্পানির কমান্ড করেছিলেন। কর্নেল হিসাবে, তিনি কিবিথুতে নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর পূর্ব সেক্টরে ৫ম ব্যাটালিয়ন ১১ গোর্খা রাইফেলসের কমান্ড করেছিলেন। একজন ব্রিগেডিয়ার হিসাবে, তিনি সোপোরে রাষ্ট্রীয় রাইফেলসের ৫ সেক্টরের কমান্ড করেছিলেন। তারপরে তিনি কঙ্গো গণতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্রে  মিশনে বহুজাতিক ব্রিগেডের নেতৃত্ব দেন যেখানে তিনি দুবার ফোর্স কমান্ডারের প্রশংসায় ভূষিত হন।

মেজর জেনারেল পদে পদোন্নতির পর, রাওয়াত ১৯তম পদাতিক ডিভিশনের (উরি) জেনারেল অফিসার কমান্ডিং হিসেবে দায়িত্ব নেন। লেফটেন্যান্ট জেনারেল হিসাবে, তিনি পুনেতে দক্ষিণী সেনাবাহিনীর দায়িত্ব নেওয়ার আগে ডিমাপুরে সদর দফতরে কমান্ডের দায়িত্ব করেছিলেন।

তিনি পূর্বাঞ্চলীয় কমান্ডের মেজর জেনারেল জেনারেল স্টাফ হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন।

সেনা কমান্ডার গ্রেডে উন্নীত হওয়ার পর, রাওয়াত ২০১৬ সালের ১ জানুয়ারি জেনারেল অফিসার কমান্ডিং-ইন-চিফ (জিওসি-ইন-সি) সাউদার্ন কমান্ডের পদ গ্রহণ করেন। একটি সংক্ষিপ্ত কার্যকালের পর, তিনি সেনাবাহিনীর ভাইস চিফের পদ গ্রহণ করেন।

বিপিন রাওয়াতকে ২০১৬ সালে ১৭ ডিসেম্বর ভারত সরকার তাকে ২৭তম সেনাপ্রধান হিসাবে নিযুক্ত করে। তিনি জেনারেল দলবীর সিং সুহাগের অবসর গ্রহণের পর ২০১৬ সালরর ৩১ ডিসেম্বর সিওএএস হিসাবে সেনাপ্রধানের পদ গ্রহণ করেন।

ফিল্ড মার্শাল স্যাম মানেকশ এবং জেনারেল দলবীর সিং সুহাগের পর তিনি গোর্খা ব্রিগেডের তৃতীয় অফিসার যিনি সেনাপ্রধান হয়েছেন।

২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর জেনারেল বিপিন রাওয়াত চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফের পদ গ্রহণ করেন এবং ভারতের প্রথম সিডিএস হন।

২০১৯ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে তার সফরে, জেনারেল রাওয়াতকে সম্মান জানিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সেনা কমান্ড এবং জেনারেল স্টাফ কলেজ ইন্টারন্যাশনাল হল অফ ফেমে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিল। তিনি নেপালি সেনাবাহিনীর অনারারি জেনারেলও। রাওয়াতকে পরম বিশিষ্ট সেবা পদক, উত্তম যুদ্ধ, সেবা পদক, অতি বিশেষ সেবা পদক, যুদ্ধ সেবা পদক, সেনা পদক, বিশেষ সেবা পদক এবং সিওএএস কম্যান্ডেশন এবং সেনা কমান্ডারের প্রশংসায় ভূষিত করা হয়েছে।

দিনবদলবিডি/এমআর

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়