বৃহস্পতিবার

২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১


৮ আশ্বিন ১৪২৮,

১৩ সফর ১৪৪৩

দিন বদল বাংলাদেশ

নিলামে উঠছে প্রিন্স চার্লস-প্রিন্সেস ডায়ানার বিয়ের কেক

রকমারি ডেস্ক || দিনবদলবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:৪৯, ৩ আগস্ট ২০২১   আপডেট: ১০:০৯, ৬ আগস্ট ২০২১
নিলামে উঠছে প্রিন্স চার্লস-প্রিন্সেস ডায়ানার বিয়ের কেক

প্রিন্স চার্লস-প্রিন্সেস ডায়ানা

১৯৮২ সালে প্রিন্স চার্লস এবং প্রিন্সেস ডায়ানার বিয়ে হয়েছিল। বিশ শতকের সব থেকে আলোচিত বিয়ে হিসেবে গণ্য করা হয় এই রাজকীয় বিয়েকে যার রেশ হয়ে গেছে আজও।

আর সেই রেশের সূত্র ধরেই প্রায় চল্লিশ বছর পরে নিলামে উঠতে যাচ্ছে প্রিন্স চার্লস এবং প্রিন্সেস ডায়ানার বিয়ের কেক।

ব্রিটিশ নিলাম সংস্থা ডোমিনিক উইন্টার অকশনের হাত ধরে ১১ আগস্ট নিলামে উঠার কথা রয়েছে এই কেকের টুকরাটির। রাজকীয় এই বিয়েতে কেক কাটা হয়েছিল মোট ২৩টি। এর মধ্যে ছিল পাঁচ ফুট লম্বা সেন্টারপিস ফ্রুটকেক।

এই কেক থেকে কেটেই ক্লারেন্স হাউসে কর্মীদের মধ্যে বিতরণ করা হয়েছিল। কেকটির উপর একটি লেবেলে লেখা ছিল, ‘হ্যান্ডেল উইথ কেয়ার–প্রিন্স চার্লস এবং প্রিন্সেস ডায়ানার বিবাহের কেক।’

জানা যায়, কেকের এই স্লাইসটি মোয়রা স্মিথকে দেওয়া হয়েছিল; তিনি ক্লেয়ারেন্স হাউসে রানির কর্মচারী ছিলেন। মোয়রা, যথেষ্ট যত্ন সহকারে এতদিন ২০০৮ সাল পর্যন্ত নিজের কাছে রেখে দেন। তারপর একজন সংগ্রাহক এটি নিজের কাছে সংগ্রহ করেন এবং বর্তমানে নিলামকারীদের সঙ্গে গ্লোসেস্টারশায়ারের সিরেন্সেস্টারে ডোমিনিক উইন্টারে বিক্রি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানা যায়।

দ্য ইন্ডিপেনডেন্টের একটি প্রতিবেদন অনুসারে, কেকের টুকরোটি আট ইঞ্চি বাই সাত ইঞ্চি মাপের। আইসিং এবং মার্জিপানের উপর লাল, সোনালি এবং নীল রঙের রয়্যাল কোট অফ আর্মসের প্রতীক রয়েছে। এত বছর পরে নিলামে তোলা কেকটির ভিত্তিমূল্য ধরা হয়েছে ন্যূনতম ২০০ পাউন্ড বা ২৭৮ ডলার।

নিলামকারী সংস্থাটি জানিয়েছে, কেকটি সংগ্রহের জন্য এখনো একদম সঠিক অবস্থায় রয়েছে। তবে কেউ যদি এটি খাওয়ার চিন্তা করে তবে এটি মোটেও সমীচীন হবে না।

চার্লসের সঙ্গে ১৯৮১ সালে বাগদানের পর থেকে ১৯৯৭ সালে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত ডায়ানাকে বলা হতো পৃথিবীর সবচেয়ে খ্যাতিমান নারী। ফ্যাশন, সৌন্দর্য, এইডস রোগ বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টিতে তার অবদান, ভূমি মাইনের বিরুদ্ধে আন্দোলন তাকে বিখ্যাত করে।

জীবদ্দশায় ডায়ানাকে বলা হতো বিশ্বের সর্বাধিক আলোকচিত্রিত নারী। অবশ্য সমালোচকদের মতে এ খ্যাতি এবং খ্যাতির জন্য প্রচেষ্টাই ডায়ানার জীবনে কাল হয়ে দাঁড়িয়েছিল।

ডায়ানার জন্ম ১ জুলাই ১৯৬১ সালে। প্রিন্স চার্লসের প্রথম স্ত্রী, ১৯৮১ থেকে ১৯৯৭ পর্যন্ত যুক্তরাজ্যের প্রিন্সেস ছিলেন তিনি। তার দুই ছেলে প্রিন্স উইলিয়াম এবং হ্যারি ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের উত্তরাধিকারীদের তালিকায় যথাক্রমে দ্বিতীয় ও তৃতীয়।

বিয়ের পর থেকে ১৯৯৬ সালে বিয়েবিচ্ছেদের আগ পর্যন্ত তাকে হার রয়্যাল হাইনেস দি প্রিন্সেস অফ ওয়েলস বলে সম্বোধন করা হতো। পরে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের আদেশে তাকে শুধু ডায়ানা, প্রিন্সেস অফ ওয়েলস বলে সম্বোধনের অনুমতি দেওয়া হয়।

আন্তর্জাতিক অঙ্গনে ডায়ানার পরিচিতি ব্যাপক। তিনি দানশীলতার জন্য বিখ্যাত ছিলেন। কিন্তু তার এই দাতব্য কার্যক্রম ঢাকা পড়ে যায় বিভিন্ন কেলেঙ্কারির গুজবে।

১৯৯৭ সালে ফ্রান্সের প্যারিস শহরে ডায়ানা ও তার তখনকার প্রেমিক দোদি ফায়েদ গাড়ি দুর্ঘটনায় নিহত হন।

দিনবদলবিডি/জিএ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়