বিশ্ব পরিস্থিতির জন্যই জ্বালানি তেলের মূল্য বাড়ানো হয়েছে : তথ্যমন্ত্রী

দিন বদল বাংলাদেশ ডেস্ক || দিন বদল বাংলাদেশ

প্রকাশিতঃ বিকাল ০৫:৩৭, সোমবার, ৮ আগস্ট, ২০২২, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৯
তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। ছবি: সংগৃহীত

তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। ছবি: সংগৃহীত

বিশ্ব সংকটময় পরিস্থিতির জন্যই বাংলাদেশে জ্বালানি তেলের মূল্য বাড়ানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

আজ সোমবার (৮ আগস্ট) তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিবের ৯২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে এবং সমসাময়িক বিষয়ে এসব কথা বলেন তথ্যমন্ত্রী।

তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেন, আমাদের অর্থনীতিতে এত ভর্তুকি দেওয়া সম্ভব না। প্রতিদিন ১০০ ডলার করে গত তিন মাসে সাড়ে ৮ হাজার কোটি টাকা ভর্তুকি দেওয়া হয়েছে।

তথ্যমন্ত্রী আরও বলেন, সরকার জ্বালানি তেলের দাম বাড়াতে বাধ্য হয়েছে। বিশ্ববাজারে দাম কমে এলে তার প্রভাব আমাদের দেশে পড়তে দেড় থেকে দুই মাস সময় লাগে। তখন আমাদের দেশে জ্বালানি তেলের দাম সমন্বয় করা হবে।

তিনি বলেন, ইউরোপের সবচেয়ে শক্তিশালী অর্থনীতির দেশ জার্মানিও জ্বালানি সংকটের জন্য সাশ্রয়ী উদ্যোগ নিয়েছে। বিদ্যুতে রেশনিং করা হচ্ছে। ফ্রান্সেও জ্বালানি সাশ্রয়ের জন্য নানা বিধিনিষেধ দেওয়া হয়েছে। বিধিনিষেধের ব্যত্যয় ঘটলে ৭৫০ ইউরো জরিমানা ঘোষণা করেছে। গ্রিস ও ইতালিও বিদ্যুৎ সাশ্রয়ের ঘোষণা দিয়েছে। হাঙ্গেরিতে এনার্জি ইমারজেন্সি ঘোষণা করা হয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রত্যেক নাগরিককে মেসেস দিয়ে বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী হওয়ার জন্য বলা হয়েছে।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিশ্বজুড়ে এই সংকটের প্রেক্ষাপটে আমাদের সরকার জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি করতে বাধ্য হয়েছে। আমি জনগণের কাছে অনুরোধ জানাবো, বিশ্ববাজারে যখন তেলের মূল্য কমে আসবে, যখন বাংলাদেশের বাজারে প্রভাব পড়তে শুরু করবে তখন জ্বালানি তেলের মূল্য আবার সমন্বয় করা হবে।

তিনি বলেন, তেলের দাম আরও আগেই বাড়ানো উচিৎ ছিল। তাহলে আমাদের এত ভর্তুকি দিতে হতো না। হঠাৎ করে বাড়ানোর প্রেক্ষিতে মানুষ একটু হতচকিত হয়ে গেছে। এটা আমি জানি বা বুঝি। তবে বিশ্ব প্রেক্ষাপটে মূল্য সমন্বয় না করে উপায় ছিল না।

দিনবদলবিডি/এইচএআর

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়